জয় নিশ্চিত, লটারি জেতার সহজ পদ্ধতি ফাঁস করলেন দুই বিজ্ঞানী! এভাবে কাটুন টিকিট

অল্প সময়ের মধ্যে বেশি বেশি টাকার মুখ দেখতে কেনা চান। আপনি নিশ্চয়ই চান? অনেকেই আছেন যারা খুব অল্প সময়ের মধ্যে অনেক অনেক বেশি টাকা উপার্জন করতে চান। সেক্ষেত্রে বহু মানুষ এমন বলেছেন যে লটারি (Lottery) টিকিট (Ticket) কেনার প্রতি ঝোঁকেন। কিন্তু চাইলেই তো আর সব পাওয়া যায় না। লটারি টিকিটটাও (Lottery Ticket) তেমন। অনেকেই ভাবেন যে লটারির টিকিট কেটে লাখ লাখ বা কয়েক কোটি টাকা উপার্জন করবেন, কিন্তু এখানেও ভাগ্য কাজ করে সবার কপালে কিন্তু লটারির টিকিট জেতা থাকে না।

যদিও এমন একজন মানুষের খোঁজ মিলেছে যিনি লটারি টিকিট কেটে কিভাবে কয়েক কোটি টাকা উপার্জন করা যায় তার ফর্মুলা জানিয়ে দিয়েছেন। হ্যাঁ শুনতে অবাক লাগলো এটাই দিনের আলোর মতন সত্যি। এখন আপনিও নিশ্চিয়ই ভাবছেন যে লটারিরও ফর্মুলা হয়?

দুই বিজ্ঞানী ফাঁস করলেন লটারি কাটার রহস্য

   

যুক্তরাজ্যের দু’জন বিজ্ঞানী (Scientist) এমন একটি ফর্মুলা তৈরি করেছেন যা লটারি জিততে পারে। তারা বলছেন, তাদের ফর্মুলা জ্যাকপটে হিট না হলেও অবশ্যই কিছু পুরস্কার পাওয়া যাবে। এর জন্য একজন ব্যক্তিকে মাত্র ২৭টি টিকিট কিনতে হবে। ডেভিড স্টুয়ার্ট এবং ডেভিড কুশিং নামে দুই গণিতবিদ যুক্তরাজ্যের জাতীয় লটারি জেতার জন্য একটি কৌশলগত উপায় আবিষ্কার করেছেন। তাঁদের দাবি অনুযায়ী, যে ৪.৫ কোটি সম্ভাবনার মধ্যে জয়ের জন্য মাত্র ২৭ টি টিকিট কিনতে হবে কোনও ব্যক্তিকে।

ইউনিভার্সিটি অব ম্যানচেস্টারের স্টুয়ার্টন ও কুশিং জ্যাকপট জয়ের নিশ্চয়তা না দিলেও তাদের দাবি, মাত্র ২৭টি টিকিট কিনে অন্তত যে কোনো ধরনের জয় নিশ্চিত করা যায়।  একটি গবেষণাপত্রে এই দুই গণিতজ্ঞ উল্লেখ করেছেন যে যুক্তরাজ্যের জাতীয় লটারিতে খেলোয়াড়দের এক থেকে ৫৯ নম্বরের মধ্যে মাত্র ৬টি নিষ্পত্তি করতে হয়।

বেছে নিতে হবে এই ৬টি নম্বর

তাঁদের দাবি, “এই লটারিতে ৬টি ভিন্ন নম্বর থাকে। ১ থেকে ৫৯-এর মধ্যে নির্দিষ্ট ৬টি বেছে নিতে হয়। পুরস্কার জিততে গেলে ছ’টির মধ্যে অন্তত পক্ষে দু’টি নম্বর মেলাতে হয়। আমরা লক্ষ করেছি, ২৭টি টিকিটের মধ্যে একটি সংখ্যা মিলে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রায় একাশো শতাংশ। তবে এত নম্বরের মধ্যে কোন ২৭টি বেছে নিতে হবে, তার জন্য জানতে হবে বিশেষ অঙ্ক।” সেই অঙ্ক জানতে পারলেই রাতারাতি ভাগ্য বদলে যেতে পারে যে কোনও ব্যক্তির। গণিতবিদরা নির্দিষ্ট সংমিশ্রণগুলি খুঁজে পেতে সীমিত তত্ত্ব ব্যবহার করেছিলেন। তারা ৫০ থেকে এক জোড়া এবং তিনটি গ্রুপ পর্যন্ত জ্যামিতি আকার গঠন করেছিল। এর পরে, প্রতিটি সেটের লাইন থেকে ছয়টি নম্বরের একটি ক্রম তৈরি করেন, যার মধ্যে একটি ছিল লটারির টিকিট তৈরি করা। তাঁরা বলেন, ২৭টি টিকিটের মধ্যে একটিতে অবশ্যই এমন কিছু থাকবে যা ড্রয়ের সঙ্গে মিলে যাবে।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর