বড় ঝটকা! হু হু করে বাড়ছে দাম, কলকাতায় কততে বিকোচ্ছে পিঁয়াজ? চমকে দেবে নয়া রেট

আগামী খরিফ ফসল (Kharif crop) না তোলা পর্যন্ত ভারতে পেঁয়াজের (Onion) জোগানে বড় ধরনের ঘাটতি দেখা দেবে বলে আশঙ্কা করছেন সকলে। হু হু করে বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। যে কোনও রান্নায় পেঁয়াজ একটা আলাদাই মাত্রা দেয়। বলা ভালো, বাঙালির হেঁশেল পেঁয়াজ ছাড়া এক কথায় অচল। সেখানেই কিনা এই পেঁয়াজের দাম হু হু করে বাড়তে শুরু করেছে।

এদিকে এহেন পেঁয়াজের ঊর্ধ্বমুখী দামের কারণে এক কথায় নাভিশ্বাস উঠে যাচ্ছে সকলের। অন্যান্য শহরের পাশাপাশি শহর কলকাতাতেও (Kolkata) পেঁয়াজের বাড়তি দামকে ঘিরে সাধারণ মানুষের ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। তবে এখানেই কিন্তু শেষ নয়, এই দাম আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কাপ্রকাশ করেছেন বাজার বিশেষজ্ঞরা। বর্তমানে শহরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা কেজির আশেপাশে। হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন একদম।

   

এদিকে সম্প্রতি বাংলাদেশে (Bangladesh) ইদের আগে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ পাঠাবে ভারত সরকার (Government Of India) বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের (Central Government) এই সিদ্ধান্তের কারণে যেন শিরে সংক্রান্তি হয়ে গিয়েছে কলকাতার। কলকাতা বাজারে পেঁয়াজ আসা অনেকটাই কমে গিয়েছে। এখন যাও বা আসছে সেগুলি হল নাসিকের পেঁয়াজ। নাসিকের পেঁয়াজ একদিকে যেমন ঝাল তেমনই বেশি টাকায় বিক্রি হচ্ছে। নাসিকের পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪ টাকা করে বড়েছে। আবার রফতানি শুরু হলে পিঁয়াজের দাম হু হু করে বাড়তে পারে বলে খবর।

কয়েকটি দেশে সীমিত পরিমাণে পেঁয়াজ রফতানির অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় সরকার ৫৪,৭৬০ টন পেঁয়াজ রফতানির অনুমতি দিয়েছে। ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশ, বাহরাইন, মরিশাস ও ভুটানে এই পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি পেয়েছেন। গত বছরের ডিসেম্বরে পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার। এর আগে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের এপ্রিল-নভেম্বর মেয়াদে ১৬ লাখ ২৬ হাজার টন পেঁয়াজ রফতানি হয়েছে, যা আগের একই সময়ে রফতানি করা ১৫ দশমিক ১৯ টনের চেয়ে প্রায় ৭ শতাংশ বেশি।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর