অর্ধেক কাজ করে ডবল মজুরি! ভোটের আগে বড় ঘোষণা মমতার, লটারি লাগল এই কর্মীদের

লোকসভা ভোট এগিয়ে আসছে। যদিও এখনও অবধি ভোটের চূড়ান্ত দিনক্ষণ ঘোষণা হয়নি। এদিকে আসন্ন এই ভোটকে পাখির চোখ করে রীতিমতো প্রতিশ্রুতির বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন রাজনৈতিক দলের নেতা মন্ত্রীরা। সেক্ষেত্রে কিন্তু পিছিয়ে নেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এবার তিনি এমন এক ঘোষণা করলেন যা শুনে সকলেই এক কথা থ হয়ে গিয়েছেন।

বিশেষ করে যারা শ্রমিক (Labour) তাঁরা তো নিজের কানকে রীতিমতো বিশ্বাস করতে পারছেন না। এখন আপনিও নিশ্চয়ই ভাবছেন যে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী কী এমন ঘোষণা করেছেন যারপরে সর্বত্র শোরগোল পড়ে গিয়েছে? তাহলে বিস্তারিত জানতে ঝটপট পড়ে ফেলুন আজকের এই প্রতিবেদনটি। গতকাল সোমবার অধিকারী গড় হিসেবে খ্যাত তমলুকে দাঁড়িয়ে বেশ কিছু প্রকল্পের সূচনা করেন মমতা। সেইসঙ্গে বড় বড় প্রতিশ্রুতিও দেন।

   

মমতা বলেন, ‘৫৯ লক্ষ মানুষকে ১০০ দিনের কাজের বকেয়া দিয়েছি। বাংলায় ৬৪ লক্ষ বাড়ি হয়েছে। কেন্দ্র টাকা না দিলেও ১১ লক্ষ বাড়ি বানিয়ে দেবো।’ ,মুখ্যমন্ত্রী জানান, আগামী এপ্রিল-মে থেকেই সেই ‘কর্মশ্রী’ প্রকল্পের সূচনা করা হবে। যাঁরা জবকার্ড হোল্ডার, তাঁরা সেই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন। তিনি বলেছেন, ‘যেহেতু কেন্দ্রীয় সরকার ১০০ দিনের কাজের টাকা বন্ধ করে দিয়েছে, তাই আমরা একটা নতুন কাজ করছি। ১০০ দিনের কাজ নামটা থাকলও ৩০-৩৫ দিনের বেশি কোনও বছর কাজ হত না। আর বাংলাই এক নম্বরে ছিল।’

mamata tamluk

তিনি জানান, ‘মনে রাখবেন, যাঁরা গরিব মানুষ, তাঁরা ১০০ দিনের কাজের জন্য যে টাকা পেতেন, সেই টাকাই পাবেন অর্থাৎ ১০০ দিনের সমান কাজের মজুরি মিলবে ৫০ দিন কাজ করেই । কিন্তু প্রকল্পের নাম হবে শুধু কর্মশ্রী। ওই প্রকল্পের জন্য ৫০ দিনের জন্য কাজ করতে হবে। যাঁরা জবকার্ড হোল্ডার, তাঁরাই কাজটা পাবেন। এই কাজটা আমরাই আপনাদের করে দেব। এপ্রিল-মে থেকে এই কাজটা শুরু হবে। ইতিমধ্যে আমরা সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর