মাত্র ৫০০ টাকায় LPG সিলিন্ডার! বড় ঘোষণা রাজ্য সরকারের, অনলাইনে করতে হবে আবেদন

আর ৬০০ বা ৯০০ টাকায় নয়, এবার মাত্র ৫০০ টাকায় রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার (Gas Cylinder) পেয়ে যাবেন সাধারণ মানুষজন। হ্যাঁ সম্প্রতি এমনই ঘোষণা করে শোরগোল ফেলে দিয়েছে রাজ্য সরকার (State Government)। এমনিতেই এখন রান্নার গ্যাস ছাড়া মানুষের জীবন অচল।

সেখানে এখনও দেশে এমন বহু পরিবার রয়েছে যারা কিনা দারিদ্রসীমার নীচে বসবাস করেন। সেক্ষেত্রে সকলের পক্ষে ৯০০ টাকা দিয়ে রান্নার গ্যাস কেনা সম্ভব হয়ে ওঠে না। ফলে তাঁদের রান্নার জন্য অন্য কোনও মাধ্যম বেছে নিতে হয়। তবে সেই চিন্তা থেকে মুক্তি দিতে চলেছে রাজ্য সরকার। এবার মাত্র ৫০০ টাকায় পেতে পারেন গ্যাস, তবে তার জন্য আপনাকে বিশেষ কিছু কাজ করতে হবে।

   

আসলে তেলেঙ্গানা রাজ্যের মানুষ শীঘ্রই একটি উপহার পেতে চলেছেন। তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী এ রেবন্ত রেড্ডি শুক্রবার বলেছেন যে তাঁর সরকার ৫০০ টাকায় এলপিজি (Liquefied petroleum gas) সিলিন্ডার সরবরাহ এবং দরিদ্রদের জন্য ২০০ ইউনিট পর্যন্ত বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সরবরাহের দুটি প্রকল্প চালু করবে। আবেদনকারীরা যারা ৫০০ টাকার গ্যাস সিলিন্ডার চান তারা অনলাইনে আবেদন করতে পারেন এবং এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে নিজেদের রেজিস্টার করতে পারেন যা শীঘ্রই এখানে উপলব্ধ করা হবে। এই নিবন্ধের মাধ্যমে যে কেউ যোগ্যতা, নিবন্ধকরণ প্রক্রিয়া এবং অন্যান্য গ্যাস সিলিন্ডার স্কিম প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন সম্পর্কে তাদের মনের দ্বিধা দূর করতে পারেন।

আসলে তেলেঙ্গানা সরকার (Government of Telangana) রাজ্য নাগরিক গ্যাস সিলিন্ডার প্রকল্পে একটি নতুন প্রকল্প উপহার দিয়েছে যেখানে যোগ্য আবেদনকারীরা ৯৫০ টাকার পরিবর্তে ৫০০ টাকায় একটি এলপিজি সিলিন্ডার পাবেন। গ্যাস সিলিন্ডারের দাম কমানোর মূল উদ্দেশ্য হলো সবাই যেন তা কিনতে পারে এবং পরিবেশকে পরিবেশবান্ধব করে তোলা যায়।

lpg gas

আবেদনকারীরা যারা তেলঙ্গানা ৫০০ টাকা গ্যাস সিলিন্ডার স্কিম ২০২৪ এর সুবিধা পেতে চান তারা অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে আবেদন করতে পারেন বা আবেদনপত্র জমা দিতে নিকটস্থ গ্যাস এজেন্সিতে যেতে পারেন। তেলেঙ্গানা সরকার মহালক্ষ্মী যোজনার সীমা বাড়ানোর জন্য ২৬ ফেব্রুয়ারি ৫০০ টাকার গ্যাস সিলিন্ডার প্রকল্প চালু করেছে। গ্যাস সিলিন্ডার প্রকল্প ছাড়াও, সরকার ২০০টি পর্যন্ত বিনামূল্যে ইউনিট সরবরাহ করবে যা নাগরিকদের মাসিক বিদ্যুৎ বিল দিয়ে সহায়তা করবে।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর