স্কুল শিক্ষক থাকাকালীন মাসে মাত্র এত টাকা বেতন পেতেন নীতা আম্বানি!

আম্বানি পরিবারকে নিয়ে দেশের সাধারণ মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই। মুকেশ আম্বানি থেকে শুরু করে নীতা আম্বানি, অনিল আম্বানি, আম্বানি পরিবারের বাড়ি অ্যান্টিলিয়া…ইত্যাদি সাধারণ মানুষের মধ্যে হাজারো প্রশ্ন ঘোরাফেরা করে। আম্বানি পরিবারের লাইফস্টাইল সকলেরই চোখে পড়ার মতো। বাড়ি, গাড়ি, নিজস্ব প্লেন, কী না নেই তাঁদের কাছে।

কিন্তু আজ এই প্রতিবেদনে সমগ্র আম্বানি পরিবারকে নিয়ে, আজ এই আলোচনা করা হবে মুকেশ আম্বানির ঘরনি অর্থাৎ নীতা আম্বানিকে নিয়ে। তবে নিতা আম্বানির পরিচয় শুধুমাত্র মুকেশ আম্বানির স্ত্রী হিসেবে নয়, তিনি রিলায়েন্স গ্রুপের মালকিন, সেইসঙ্গে আবার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মতো আইপিএল দলের মালকিন। তবে আপনি কি জানেন যে মুকেশ আম্বানির সঙ্গে বিয়ে করার আগে কেমন জীবনযাত্রা ছিল নীতা আম্বানির? তিনি কোথায় চাকরি করতেন বা কত টাকা বেতন পেতেন জানেন? শুনলে আপনিও অবাক হয়ে যাবেন।

নীতা আম্বানির বেতন

   

আম্বানি পরিবারের সদস্য হওয়ার আগে, নীতা মুম্বাইয়ের একটি মধ্যবিত্ত গুজরাটি পরিবার থেকে উঠে এসেছিলেন এবং একজন স্কুল শিক্ষিকা হিসেবে নিজের চাকরি জীবন শুরু করেছিলেন। মুকেশ আম্বানিকে বিয়ে করার আগে নরসি মনজি কলেজ অফ কমার্স অ্যান্ড ইকোনমিক্স থেকে স্নাতক হন। এরপর স্কুল শিক্ষকতা শুরু করেন। স্কুল শিক্ষক হিসেবে ৮০০ টাকা বেতন পেতেন। বেশ কিছু বছর আগে সিমি গারেওয়ালের একটি শো-এ হাজির হয়েছিলেন মুকেশ আম্বানি এবং নীতা আম্বানি। সেখানে নীতা জানান, তিনি প্রতি মাসে ৮০০ টাকা বেতন পেতেন স্কুলে শিক্ষকতা করে। তখন মুকেশ আম্বানি ঠাট্টা করে জানিয়েছিলেন যে সেই টাকাটাও তাঁরই ছিল।

যাইহোক, বিয়ের বেশ কিছু বছর পরেও নাকি স্কুলে চাকরি করা অব্যাহত রেখেছিলেন নীতা। নীতা আম্বানি জানিয়েছিলেন যে সেই সময় লোকেরা তাকে নিয়ে হাসাহাসি করত। তবে এতে তিনি বেশ তৃপ্তি অনুভব করেন।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর