ট্যাক্সে বিরাট ছাড়! গাড়ির মালিকদের জন্য বড় ঘোষণা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের, কমবে এতটা খরচ

আপনিও কি পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) বাসিন্দা? আপনার কাছে কি চারচাকা (Car) আছে তাহলে আপনার জন্য রইল একটি স্বস্তির খবর। মূলত গাড়ির মালিকদের বিশাল সুযোগ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার (Government Of West Bengal)। যা শুনলে আপনি খুশিতে লাফিয়ে উঠবেন।

জানা গিয়েছে, শনিবার বিধানসভায় উত্থাপিত পশ্চিমবঙ্গ মোটর ভেহিকেলস ট্যাক্স (সংশোধনী) বিল ২০২৪-এ ছোট গাড়ির উপর আজীবন রোড ট্যাক্সের কম হারের প্রস্তাব দিয়ে রাজ্য সরকার যানবাহন মালিকদের একটি বড় স্বস্তি দিয়েছে। একইভাবে, পশ্চিমবঙ্গের আরেকটি অতিরিক্ত কর এবং মোটর গাড়ির উপর এককালীন কর সংশোধনের মাধ্যমে ৬,০০০ কেজির কম ওজনের তিন চাকার গাড়ি এবং হালকা পণ্যবাহী যানবাহনকেও অগ্রিম কর প্রদানের ক্ষেত্রে বিশাল ছাড় দেওয়া হয়েছিল।

   

রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী বলেন, “কোনও গাড়ির মালিক যদি দশ বছরও গাড়ি রেখে দেন, তাহলে তাঁকে ১১ শতাংশ কর দিতে হয়। পশ্চিমবঙ্গ অতিরিক্ত কর এবং মোটর যানবাহনের উপর এককালীন কর (সংশোধনী) বিল ২০২৪ পাস হওয়ার সাথে সাথে, সমস্ত তিন চাকার যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন, ই-রিকশা, ই-কার্ট, ট্র্যাক্টর, কৃষি ট্রেলার, নির্মাণ সরঞ্জাম যানবাহন এবং পরিবহন (বাণিজ্যিক) যানবাহন হিসাবে নিবন্ধিত ৬,০০০ কেজির কম ওজনের হালকা পণ্যবাহী যানবাহনগুলিকে অগ্রিম কর প্রদানের উপর মোটা ছাড় দেওয়া হয়েছিল।”

তিনি জানান, ‘বিলটি ত্রৈমাসিক কর প্রদানের বিকল্পটিও বাতিল করে এবং বার্ষিক পদ্ধতিটি বাধ্যতামূলক করেছে। এই ধরনের ছাড় এবং কর প্রদানের বার্ষিক পদ্ধতি প্রবর্তনের মাধ্যমে আমরা ছোট যানবাহনের অপারেটরদের নিয়মিত কর প্রদানে উত্সাহিত করতে চাই, তাদের সঞ্চয়কে করের উপর সর্বাধিক করে তুলতে চাই। অগ্রিম কর দিলে তাঁদের সঞ্চয় আরও বাড়বে।’

Wb vehicles

পাঁচজন পর্যন্ত বসার ক্ষমতা এবং ৬৫০ সিসি পর্যন্ত ইঞ্জিন ক্ষমতা সহ ভাড়া নেওয়ার জন্য ব্যবহৃত পরিবহন (বাণিজ্যিক) যানবাহনগুলিও ছাড়ের সুবিধা পেতে পারে। অগ্রিম কর পরিশোধের তিন বছরের জন্য ১৫ শতাংশ, পাঁচ বছরের জন্য ৩০ শতাংশ এবং ১০ বছরের জন্য ৪০ শতাংশ কর ছাড় দেওয়া হবে। কর খেলাপিদের সুদে ছাড় যেসব করদাতা সম্পত্তি কর দেননি, তাদের জন্য সুদে ছাড় প্রকল্প ঘোষণা করল আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন। বিভিন্ন সম্পত্তির ধরণের জন্য বিভিন্ন ছাড়ের শতাংশ। স্কিম ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বৈধ।

বিধানসভায় পরিবহণমন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী জানিয়েছেন, নতুন কর কাঠামোতে যদি ১০ শতাংশও আদায় করা যায় তবে রাজ্য সরকারের ৯০০ থেকে হাজার কোটি টাকা পর্যন্ত আয় হতে পারে। এদিকে ইতিমধ্য়েই ওয়েভার স্কিমও চালু করেছে পরিবহণ দফতর। এই ব্যবস্থার মাধ্য়মে গাড়ির মালিকরা বকেয়া কর জমা দিলে জরিমানা মকুব করা হচ্ছে। জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি এই দুই মাস ধরে নতুন স্কিমটি চালু হয়েছে। এই নয়া স্কিমের প্রতি আকৃষ্ট হয়েছেন অনেকেই। কারণ এই নয়া স্কিমের মাধ্য়মে সামগ্রিকভাবে পরিবহণ দফতর ও সাধারণ গাড়ির মালিক উভয়েরই সুবিধা হবে।

সূত্রের খবর, একাধিক ধাপের মাধ্যমে এই কর ছাড়ের বিষয়টি থাকবে। বাণিজ্যিক গাড়ির ক্ষেত্রে ১০ বছরের কর একসঙ্গে জমা দিলে ৪০ শতাংশ ছাড় মিলবে। এককালীন যদি কেউ ৫ বছরের কর জমা দিয়ে দেন তবে সেক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ ছাড় মিলবে। যদি তিন বছরের কর একসঙ্গে দিতে চান তবে ছাড় মিলবে ১৫ শতাংশ।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর