মা পরিচারিকা, UPSC পরীক্ষার দিন হয় দুর্ঘটনা! সব বাধা পেড়িয়ে দেশের সর্বকনিষ্ঠ IPS হন সাফিন

আমরা সবাই এই প্রবাদ শুনেছি যে, “পরিশ্রম সৌভাগ্যের প্রসূতি”। পরিশ্রম করলেই সাফল্য এসে ধরা দেবে। বিখ্যাত বিজ্ঞানী ও উদ্যোক্তা টমাস আলভা এডিসন বলেছিলেন “জিনিয়াস হলো ১% ইচ্ছা, আর ৯৯% পরিশ্রম”। এমনই এক ব্যক্তি হলো সফিন।

সফিন হাসান, এই মুহূর্তে অনেকেই হয়তো এই নামটির সাথে পরিচিত। দেশের সর্বকনিষ্ঠ আইপিএস অফিসার তিনি। সাল ২০১৮ তে মাত্র ২২ বছর বয়সে ইউপিএসসি পাশ করেন তিনি। কিন্তু তার এই সফরটা কি এতোটাই সহজ ছিলো? মোটেও না, এই জায়গায় পৌঁছাতে প্রচুর সংগ্রাম করতে হয়েছে তাকে।

২১ জুলাই ১৯৯৫ সালে গুজরাটের পালানপুর জেলারসফিন গ্রামের এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন হাসান। যার মা ছেলের পড়াশোনার খরচ চালানোর জন্য অন্যের বাড়িতে কাজ করতেন আর বাবা দিন মজুরের কাজ করতেন। গ্রামের এক অত্যন্ত সাধারণ স্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন তিনি। আর্থিক অবস্থা এতোটাই খারাপ ছিলো যে, সেটা দেখে একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীর ফি মকুব করে দেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

ছোটো থেকেই পড়াশোনার প্রতি প্রবল আগ্রহী ছিলেন সফিন। জীবনের কোনো প্রতিকুলতাকেই বাধা হতে দেননি। ২০১৭ সালে UPSC পরীক্ষার দিন সড়ক দূর্ঘটনায় গুরতর আহত হন তিনি। কিন্তু কোনো কিছুর পরোয়া না করেই ঐ অবস্থাতেই পরীক্ষা দেন সাফিন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Safin Hasan (@safinhasanips)

পরীক্ষা শেষে হাসপাতালে যান এবং ডাক্তার জানান যে, আঘাত গুরুতর এবং দীর্ঘদিন ফিজিওথেরাপি করাতে হবে তাকে। কিন্তু সাফিন হাল ছেড়ে না দিয়ে নিজের লক্ষ্যে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হয়ে পড়েন। তার এই প্রচেষ্টা এবং সংকল্প ফলপ্রসূ হয় এবং তিনি অল ইন্ডিয়ায় ৫৭৯ র‍্যাঙ্ক করে দেশের সর্বকনিষ্ঠ IPS এর খেতাব অর্জন করেন।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button