বাড়ি দখলের নোটিশ পাঠায় ব্যাঙ্ক, তিন ঘণ্টার মধ্যে ৭০ লাখের লটারি জিতলেন মাছ বিক্রেতা

কিছু কিছু ঘটনা থাকে যা শুনে অত্যন্ত অস্বাভাবিক মনে হয়। নিজের চোখে না দেখে সেই সমস্ত ঘটনা বিশ্বাস করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। তেমনই একজন হলেন কেরালার কোল্লাম শহরের মাছ বিক্রেতা পুকুঞ্জু। মুশকিল আসান করেছেন তিনি। চালচুলো হীন নিধিরাম সর্দার থেকে সোজা লাখপতি হয়েছেন তিনি।

পুকুঞ্জু আসলে কেরালার কোল্লামের ময়নাগাপ্পল্লীর মাছ বিক্রেতা। এক লটারির টিকিট বদলে দিয়েছে তার ভাগ্য। ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিয়ে বড় খেসারত দিতে হতো তাকে। কিন্তু তারপরই ঘটে যায় এক বিস্ময়। একেবারে ৭০ লাখের লটারি জিতে যান তিনি। এই হঠাৎ পুরষ্কার একেবারে বদলে দিয়েছে তার জীবন।

এই গল্প কোনো রূপকথার চেয়ে কম নয়। আসলে পুকুঞ্জু কোনোদিনই সেভাবে লটারির টিকিট কাটেননি। স্ত্রী মুমতাজ এবং তার দুই সন্তানকে নিয়ে কোনওমতে দিন গুজরান হয় তাদের। আর তারই মাঝে ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিয়ে কষ্টে নিজের বাড়ি তৈরী করেন তিনি। সেজন্য ব্যাঙ্কের পাওনা ছিল ৯ লাখ টাকা।

এদিকে পুকুঞ্জু লোন নিয়ে পড়েন মহাবিপদে। তিনি ভেবেছিলেন যে, তার মাছের ব্যাবসা থেকে ধীরে ধীরে এই লোন তিনি মিটিয়ে দেবেন। কিন্তু সে আর হওয়ার নয়। ধীরে ধীরে লোনের আসলের সাথে বাড়তে থাকে সুদের পরিমাণও। তার স্বপ্নে শেষ কোপ বসায় করোনা মহামারী। একেবারে ভেঙে দেয় তার স্বপ্ন।

এরপর সময় গড়িয়েছে কিন্তু লোন শোধ তো দূরের কথা আসলের সাথে সুদের পরিমাণ বেড়ে গিয়েছে তার। তবুও ব্যেঙ্কের ঋণ আর শোধ করে উঠতে পারেননি। ৯ লাখ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ টাকায়। শেষমেষ বুধবার দিন ব্যাঙ্ক থেকে নোটিশ আসে ঋণ শোধ না হলে ভিটেমাটি ছেড়ে, তার স্বপ্নের বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যেতে হবে তাকে। কিন্তু এরপরই ঘটে সেই বিস্ময় ঘটনা।

ipiccy img 1 6347bf12ec54c

ব্যাঙ্কের নোটিশ আসার ৩ ঘণ্টার মধ্যেই আসে সুখবর। একেবারে ৭০ লাখ টাকা জিতে নেন তিনি। হঠাৎ করে কাটা লটারির টিকিট ভাগ্য বদলে দেয় তার। ঋণ তো শোধ হবেই সাথে নিজের ভবিষ্যতের জন্যও বেশ ভালো অংকের সেভিংস করতে পারবেন তিনি।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button