পাত্তা পাবে না ইলেকট্রিক কার, ভারতের প্রথম সোলার হাইব্রিড গাড়ি আনছে ISRO! হাত মেলাচ্ছে টাটা-মারুতি

ভারতে জ্বালানি তেলের দাম দিন দিন যেন আগুন হয়ে উঠেছে। কিছুদিন আগে সরকার কিছুটা ছাড় দিলেও সারা দেশের জন্য যেন তা মোটেই পর্যাপ্ত নয়। এমতাবস্থায় একমাত্র ইলেকট্রিক গাড়িগুলি কিছুটা স্বস্তি দিতে পারে আপনাকে। কিন্তু বিদেশি বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর গাড়ি কেনা ভারতীয় মধ্যবিত্তদের জন্য এককথায় অসাধ্য বলা চলে। কিন্তু দেশবাসীকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতেও এগিয়ে এল দেশের গর্ব ISRO।

বর্তমান কেন্দ্র সরকারও পেট্রোল এবং ডিজেলের থেকে নির্ভরতা কমাতে বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রচার চালাচ্ছে। কিন্তু বৈদ্যুতিক গাড়িরও নিজস্ব সমস্যা রয়েছে। চার্জ শেষ হয়ে গেলে কার্যত অকেজো হয়ে যায় সেগুলি। কিন্তু এইবার যে প্রযুক্তির কথা বলছি তাতে চার্জ তো শেষ হবেইনা, বরঞ্চ বেশিদূর গেলে বেড়ে যাবে আপনার গাড়ির স্পিড। আসলে আমরা সৌরশক্তি চালিত গাড়ির কথা বলছি। বৈদ্যুতিক গাড়ির চেয়েও কম দূষণ হয় এখানে এবং দামেও খুব সস্তা।

সম্প্রতি এই বিষয়ে গবেষণা চালিয়েছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ISRO। তারা তৈরি করেছে সোলার হাইব্রিড গাড়ি। ইতিমধ্যে গাড়িটিকে তিরুবনন্তপুরমের বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারে প্রদর্শন করা হয়েছে। ইসরোর বিজ্ঞানীরা এই সোলার শক্তি চালিত গাড়িকে পুরোপুরি দূষণমুক্ত উপায়ে তৈরি করেছেন। বর্তমানে তাদের এই প্রকল্প সফল হলেও তারা এখন কাজ করছেন কিভাবে এই গাড়ির খরচ কমানো যায়, যাতে সকল ভারতীয় এই গাড়ি কিনতে পারে।

এই গাড়ি দূষণ কম নয়, একেবারেই করে না। কারণ পেট্রোল-ডিজেলের গাড়ি থেকে ধোঁয়া বের হয়, আবার ইলেক্ট্রিক গাড়ি গুলো প্রত্যক্ষ ভাবে কোনো দূষণ না করলেও তারা যে চার্জ নেয় চার্জিং স্টেশন থেকে সেই বিদ্যুৎ তৈরীতে ধোঁয়া বের হয়। কিন্তু সোলার শক্তি চালিত এই গাড়ি থেকে একেবারে শুন্য হয়ে যায় কার্বন নিঃসরণ। তবে ISRO এর মতে যত তাড়াতাড়ি এই গাড়িগুলির প্রোডাকশন শুরু হবে, ততই ককে যাবে দাম। এখনো পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী টাটা এবং মারুতি কোম্পানি জনসাধারনের জন্য বাজারে নামাবে এই গাড়ি।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button