রেল নেটওয়ার্কের নিরিখে বিশ্বে দাপট বজায় রেখে এত নম্বরে ভারত, বহু পিছিয়ে কানাডা-জার্মানি-ফ্রান্স

রেল (Rail) আজ সারা বিশ্বেই বেশ সমাদৃত হয়। রেলের বিশেষত্ব হলো এখানে আপনি সস্তায়, খুবই আরামে বহুদূর পর্যন্ত যাতায়াত করতে পারেন। কিন্তু শুরু থেকেই রেল ব্যবস্থা এত মজবুত থাকেনি। রেলের ভাবনা শুরু হয় ঘোড়ায় টানা বগির মাধ্যমে, তারপর কেটে গিয়েছে কয়েক শতক আর আজ আমরা এসেছি বুলেট ট্রেনের যুগে। ভারতেও লঞ্চ হয়েছে একের পর এক হাইস্পিড ট্রেন। কিন্তু এই সময়ে বিশ্বের বাকি রেলওয়ের অবস্থা ঠিক কীরকম হয়েছে? কত লম্বা বাকি দেশের রেল নেটওর্য়াক? চলুন সেটাই দেখবো আজ।

১. আমেরিকা : সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি রেলপথ রয়েছে আমেরিকাতে। ২,৫৭,৫৬০ কিমি ব্যাপী এই রেলপথ। যদিও সেদেশে প্যাসেঞ্জার ট্রেনের চেয়ে রেলপথে মালগাড়ির চলাচল অনেক বেশি। আমেরিকানরা সাধারণত ফ্লাইট ব্যাবহার করতে বেশি পছন্দ করে।

images (30)

২) চিন : রাশিয়াকে টপকে রেল নেটওয়ার্ক এর পরিধিতে দুই নম্বরে আসে লাল চিন। সেখানে ১,৫০,০০০ কিমি লম্বা রেল নেটওয়ার্ক রয়েছে। এখানে বিশেষ ব্যাপার হলো যে, এই নেটওয়ার্কের মধ্যে ৪০,০০০ কিমিই হলো উচ্চ গতির বুলেট ট্রেনের জন্য। পৃথিবীতে চিনেই রয়েছে সবচেয়ে বেশি হাইস্পিড রেলপথ।

images (31)

৩) রাশিয়া : আকার আয়তনের দিকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ রাশিয়া। ৮৫,৬০০ কিমি বিস্তৃত রেল নেটওয়ার্ক রয়েছে পুরো রাশিয়াতে। যদিও আমেরিকা, চিন রেল পরিষেবার ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে, কিন্তু তাদের এগিয়ে থাকার কারণ হলো রাশিয়াতে জনঘনত্ব অনেক কম, আর তাছাড়া দেশটির অনেক অংশ বরফে ঢাকা রয়েছে।

images (33)

৪) ভারত : রেল নেটওয়ার্কের পরিধির হিসেবে ভারতে রয়েছে বিশ্বে চতুর্থ বৃহত্তম রেল নেটওয়ার্ক। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বিশাল সংখ্যক জনসংখ্যাকে নিজেদের মধ্যে কানেক্ট করতে পারার জন্য ভারতীয় রেল (Indian Railways) এক অনন্য রেকর্ড গড়েছে। ৭০,২২৫ কিমি ব্যাপ্ত রেল নেটওয়ার্ক রয়েছে ভারতে। দেশে মোট ১,২৬,৩৩৬ কিমি রেল ট্র্যাক বসানো রয়েছে। প্রসঙ্গত ভারতে ৭১% রুটই বিদ্যুতায়িত।

images (34)

৫) কানাডা : ৪৯,৪২২ কিমি দৈর্ঘ্যের কারণে বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম রেলওয়ে নেটওয়ার্ক রয়েছে কানাডাতে। কিন্তু কানাডার পুরো রেলওয়ে ব্যবস্থাই বেসরকারি এবং এক্ষেত্রেও শুধুমাত্র মাল পরিবহনের জন্যই বেশি ব্যবহার হয় কানাডার রেল নেটওয়ার্ক।

images (35)

৬) জার্মানি : কানাডার পরেই ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে জার্মানির রেল নেটওয়ার্ক। ৪০,৬৮২ কিমি দৈর্ঘ্য ব্যাপ্ত রেলপথের মাত্র ৫,৫৩৮ কিমিতেই বিদ্যুতায়ন সম্পূর্ন হয়েছে সেখানে।

images (36)

৭) আর্জেন্টিনা : দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশটিতে ৪৭,০০০ কিমি দৈর্ঘ্যের রেলপথ রয়েছে। দক্ষিণ আমেরিকার বৃহত্তম রেল নেটওয়ার্ক রয়েছে আর্জেন্টিনাতে।

images (37)

৮) অস্ট্রেলিয়া : অস্ট্রেলিয়াতেও পরিবহনের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে তাদের রেলওয়ে নেটওয়ার্ক। অস্ট্রেলিয়ার রেলওয়ে নেটওয়ার্ক প্রায় ৩৩,২৭০ কিমি লম্বা। কিন্তু এর মাত্র কিছু অংশই এখনো অবধি বিদ্যুতায়ন হয়েছে।

images (38)

৯) ব্রাজিল : বিশ্বে রেল নেটওয়ার্কের দিক থেকে ব্রাজিলের অবস্থান ৯ নম্বরে। দক্ষিণ আমেরিকার এক দেশে ৩০,১২২ কিমি লম্বা রেলপথ রয়েছে। ব্রাজিল সরকার এখনো অবধি ৩০ শতাংশের বেশি বিদ্যুতায়ন সম্পূর্ন করেছে। দক্ষিণ আমেরিকায় রেল নেটওয়ার্কের নিরিখে আর্জেন্টিনার পরেই রয়েছে ব্রাজিল।

images (39)

১০) ফ্রান্স : রেল নেটওয়ার্কের দিক থেকে ফ্রান্স রয়েছে দশম স্থানে। ফ্রান্সে রেলের সর্বাধিক ব্যবহার হয় যাত্রীদের যাতায়াতের কারণে।

images (40)

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button