কীভাবে একজন ED অফিসার হওয়া যায়, কত টাকাই বা বেতন, আর কী কী ক্ষমতা থাকে! রইল তথ্য

রাজ্য তথা দেশজুড়ে এখন বড্ড বেশী খবরে রয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ED। বাংলায় ইতিমধ্যে ধরা পড়েছে বিশাল কারচুপি। বৃহৎ বড় SSC স্ক্যামের পর্দাও তারাই ফাঁস করেছে, তাই এই মুহূর্তে বিশেষভাবে খবরে রয়েছে তারা। আর ED এর এই কর্মকাণ্ড দেখে প্রচুর তরুণ তরুণী চাইছে ED তে যোগ দিতে। কিন্তু কীভাবে যোগ দেবেন ED তে? চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই প্রক্রিয়া।

ED অর্থাৎ Enforcement Directorate একটি আর্থিক তদন্তকারী সংস্থা। প্রতিবছরই এখানে বিপুল লোক নেওয়া হয়। কিন্তু সেই প্রক্রিয়া মোটেই সহজ না। ইচ্ছুক প্রার্থীদের এক জটিল পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়, আপনিও যদি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে নির্দিষ্ট স্থান দখল করতে পারেন তাহলে আপনিও একজন ED অফিসার হতে পারবেন।

   

ED এর প্রধান কাজ কী : ED প্রধানত আর্থিক দূর্নীতির ব্যাপারে দেখে থাকে। মানি লন্ডারিং থেকে শুরু ব্ল্যাক মানি না আয়ের চেয়ে বেশী সম্পত্তি থাকার বিষয়ে তদন্ত করে থাকে। কোনো জায়গায় আর্থিক তছরুপ হলে তারা শুরু করে নিজেদের তদন্ত।

কী কী বিষয়ে কাজ করে ED :

১) টাকা পয়সার লেনদেন সংক্রান্ত সমস্ত কিছুরই তদন্ত করে থাকে ED।
২) ভারতের কোথাও Foreign Exchange Management আইনের লঙ্ঘন হলে ইডি তদন্ত করে।
৩) Foreign Exchange Management Act আইনের লঙ্ঘন করা হলে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার এবং তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার গুরু দায়িত্বও থাকে ED এর কাঁধে।
৪) কোনো নাগরিক ভারতের বাইরে সম্পত্তি কিনলে সেদিকেও তদন্ত করতে থাকা এই সংস্থা।

ED এর মূখ্য কার্য্যালয় কোথায় কোথায় অবস্থিত : ED এর প্রধান কার্য্যালয় অবস্থিত রয়েছে দিল্লীতে। তবে সারা দেশে কাজের সুবিধার্থে আরো পাঁচটি রিজিওনাল অফিস রয়েছে দেশজুড়ে। এই অফিসগুলি হলো কলকাতা, মুম্বাই, দিল্লি, চেন্নাই এবং চন্ডীগড়।

তাহলে ED সম্পর্কে তো জানতে পারলেন, কিন্তু কীভাবে হবেন একজন ED অফিসার? চলুন এবার সেই কথা জেনে নিই

আপনি দুই ভাবে হতে পারবেন একজন ED অফিসার। যেগুলি হলো ১) সরাসরি SSC CGL পরীক্ষার মাধ্যমে। আর ২) কেন্দ্র সরকারের অফিসার র‍্যাঙ্কের কোনো চাকরির পদোন্নতির মাধ্যমে।

ED তে চাকরি করার কী যোগ্যতা রয়েছে:

১) সরকারি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত যেকোনো ইউনিভার্সিটি থেকে গ্র্যাজুয়েশন পাশ করতে হবে।
২) আপনাকে অতি অবশ্যই ভারতীয় নাগরিক হতে হবে।
৩) সেইসাথে,ইডি অফিসার হওয়ার জন্য প্রার্থীকে চালাক এবং ধুর্ত হতে হয় আর সেইসাথে মানুষকে বোঝার বিশেষ ক্ষমতা থাকতে হয়।

কীভাবে হবে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া : SSC CGL এর নিয়োগ প্রক্রিয়া হয় তিনটি ধাপে যেগুলি হলো

Tier-1 পরীক্ষা (200 নম্বর)
Tier-2 পরীক্ষা (200 নম্বর)
Tier-3 পরীক্ষা (100 নম্বর)

এবার আপনি এই সমস্ত ধাপে উত্তীর্ণ হলেও যে একজন ED অফিসার হয়ে যাবেন সেই ব্যাপারে নিশ্চিত নেই। ED অফিসার হওয়ায় জন্য আপনাকে উপযুক্ত নাম্বার এবং Rank হাসিল করতে হবে।

কত বেতন ED অফিসারদের : ৬০,০০০ থেকে শুরু হয় বেতন। এরপর ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে তা।

ইডিতে চাকরি পাওয়ার বয়সসীমা কত : প্রার্থীকে অতি অবশ্যই ২০ থেকে ২৭ বছর বয়সী হতেই হবে। তবে SC, ST শ্রেণীর লোকেরা বয়সের ঊর্ধ্বসীমায় ৫ বছর এবং OBC লোকেরা ৩ বছরের ছাড় পেয়ে যান।

সম্পর্কিত খবর