ব্যাঙ্কের থেকে টাকা লোপাট গেলেও মিলবে ফেরত! গ্রাহকদের জন্য বিরাট সুযোগ SBI-র

আমাদের জীবন এখন ইন্টারনেট নির্ভর। টাকা বিনিময় থেকে শুরু করে সমস্ত কিছুই এখন মাত্র একটা ক্লিকে। এতে একাদিকে যেমন ব্যাপক সুবিধা হচ্ছে মানুষের অপরদিকে সুবিধা হচ্ছে সাইবার হ্যাকারদেরও। ক্রমশ বাড়ছে ব্যাঙ্ক জালিয়াতি। আর এই কুকর্মগুলি করার প্রধান মাধ্যম হলো মোবাইল ফোন। এক সেকেন্ডের একটা ভুলে আপনি হতে পারেন স্বর্বশ্রান্ত। প্রতিনিয়ত সরকার থেকে সতর্কবাণী দেওয়ার পরও প্রচুর মানুষ প্রতারিত হচ্ছে এই দুষ্কৃতীদের হাতে। এমতাবস্থায় বিশেষ ব্যবস্থা নিয়ে এলো এসবিআই জেনারেল ইনসিওরেন্স। চলুন জেনে নিই বিস্তারিত।

সম্প্রতি এসবিআইএর তরফ থেকে একটি বিশেষ বীমা-প্রকল্পের ঘোষণা করা হয়েছে। সংস্থাটি জানিয়েছেন যে কোনো ব্যাঙ্কের গ্রাহকই এই সুবিধা লাভ করতে পারবেন। এবং এই ইনসিওরেন্স এর মাধ্যমে কমবে সাইবার জালিয়াতির ঝুঁকিও। প্রসঙ্গত, করোনা অতিমারিতে মানুষ সম্পূর্ণরূপে ডিজিটাল লেনদেনের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। এরফলে সুবিধার পাশাপাশি বেড়েছে বিপদও।

সম্প্রতি আইসিইআরটি-ইন (ইন্ডিয়ান কম্পিউটার এমারজেন্সি রেসপন্স টিম) একটি সমীক্ষা চালিয়ে দেখেছেন যে, সাইবার জালিয়াতিতে ২০১৮ সালে যে ক্ষতির পরিমাণ ছিল ২.০৮ লাখ টাকা ২০২১ সালে তা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১৪.০২ লাখ টাকা। ২০২০-২১ অর্থবর্ষ অনুযায়ী এযাবৎ ৬৩.৪ কোটি টাকার জালিয়াতির খবর নথিভুক্ত করা হয়েছে। দেশের একাধিক ব্যাঙ্ক থেকে পাওয়া তথ্য দেখলেই বোঝা যায় কী চরম সংকট এসে দাঁড়িয়েছে আমাদের দুয়ারে।

প্রসঙ্গত, এসবিআই থেকে জানানো হয়েছে তাদের নতুন বিমা প্রকল্প এই সমস্ত জালিয়াতি থেকে মুক্তি দেবে মানুষকে। এই প্রকল্প একাধারে যেমন যে কোনো অবৈধ ডিজিটাল লেনদেনে হওয়া ক্ষতির থেকে বাঁচাবে একইসাথে ক্ষতিপূরণও দেবে। এছাড়াও ব্যক্তিগত ডেটা চুরি, সাইবার ট্রোলিং, সাইবার হ্যারাশিং এর মতো সমস্যাতেও সুবিধা দেবে এই বীমা। এসবিআইয়ের এই নতুন বীমা সম্পর্কে সংস্থার ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আনন্দ পেজাওয়ার একটি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, ‘‘ইন্টারনেট যেমন জীবনে অনেক সুবিধা করে দিয়েছে, তেমনই অনেক ঝুঁকি বাড়িয়ে দিয়েছে। এই প্রকল্প সেই ঝুঁকি এবং ক্ষতি কমিয়ে দেবে।’’

এর পাশাপাশি সমস্ত রকম সমস্যার সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। কোনো সমস্যায় আইনি সাহায্য বা আইটি বিশেষজ্ঞের সাহায্য দরকার পড়লে সেটাও করা হবে সংস্থার থেকে, এমনটাই দাবি এসবিআই জেনারেলের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আনন্দ পেজাওয়ারের। এর সাথে আর্থিক তছরুপে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির কোনো মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন পড়লে তাও মিলবে এই বীমা থেকেই।

sbi bank

এই প্রকল্প প্রসঙ্গে এসবিআই জেনারেলের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আনন্দ পেজাওয়ার বলেন, কারও কোনও ক্ষতি হলে আইনি সাহায্য বা আইটি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ দরকার হলে সেটাও সংস্থার পক্ষ থেকেই ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছে এসবিআই জেনারেল। এমনকি আর্থিক ক্ষতির জন্য কেউ হতাশা বা অবসাদে ভুগলে চিকিৎসার খরচও পাওয়া যাবে বিমা থেকেই।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button