কৃষকের ছেলে, পাগল বলত লোকে! বাড়ি ছেড়ে ৭ মাসের পরিশ্রমে গাড়িকে বানালেন আস্ত হেলিকপ্টার

স্বপ্ন না দেখলে বড় হওয়া সম্ভব নয়। একদিনের স্বপ্নই আপনাকে অন্যদিনে বড় ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়। তবে সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য অনেক পরিশ্রম করতে হয়। ধৈর্য্য, কঠোর পরিশ্রম এবং কাজের প্রতি ভালোবাসা থাকলে স্বপ্ন একদিন অবশ্যই ধরাশায়ী হবে। আজ তেমনই একজনের গল্প আপনাদের বলতে চলেছি যিনি স্বপ্ন দেখেছিলেন হেলিকপ্টার তৈরি করে আকাশে ঘুরে বেড়ানোর। আর পরবর্তী সময়ে কি হলো সেই নিয়েই আমাদের আজকের প্রতিবেদন।

শৈশবে অনেক স্বপ্ন দেখলেও বড় হওয়ার সাথে সাথে হারিয়ে যেতে থাকে সেই স্বপ্নেরা। আমরা আজ বিকাশ কুমার সিং এর গল্প বলছি যিনি হেলিকপ্টার তৈরীর স্বপ্ন দেখেন। নিজের মনেই কল্পনা করতেন সেই স্বপ্নতরীতে চেপে আকাশ জুড়ে ঘুরে বেড়ানোর। আর সেই স্বপ্নকে সার্থক করার জন্য করেছেন কঠোর পরিশ্রম।

৭ মাস ধরে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে, রক্তজল করা পরিশ্রমের মাধ্যমে একটি ডেমো হেলিকপ্টার তৈরি করেন তিনি। নিজের স্বপ্নপূরণে পাশে পেয়েছিলেন পরিবারকে। যদিও সময় যত পেরিয়েছে সমাজ এবং আত্মীয়স্বজনদের থেকে কটূক্তি শুনতে হয়েছে তাকে। কিন্তু তিনি থেমে থাকেননি। অনেকেই তাকে নিয়ে হাসিঠাট্টা করতে থাকে।

বিকাশ সিং এর বাড়ি উত্তরপ্রদেশের জৌনপুরের লাইনবাজার থানা এলাকার বেলওয়া রামসাগর গ্রামে। তার বাবা রাম সিঙ্গার সিং, পেশায় একজন কৃষক। বিকাশ নিজের চেষ্টাতেই একটি গাড়িকে মডিফাই করে হেলিকপ্টার বানিয়েছেন। জানলে অবাক হবেন কোনো পুঁথিগত বিদ্যা বা জ্ঞান নেই তার। বিজ্ঞানী বা প্রকৌশলীর কোনোটাই নন তিনি। একজন সাধারণ কৃষকের সন্তান হয়েও তিনি যা করেছেন তার আলোচনা চলছে সারাদেশে।

২০১৯ সালে তার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলে তিনি নিজের স্বপ্ন পূরণ নিয়ে একটি পরামর্শ পান। এর আগে বিহারের এক যুবক এই কাজে অসাধ্য সাধন করার কথা জানতে পারেন বিকাশ। তার অনুপ্রেরণা নিয়ে তৈরি করেন নিজের হেলিকপ্টার। আর সেইজন্য তিনি প্রথমেই পুরনো কিন্ত ভালো কন্ডিশনে রয়েছে এমন ‘সুইফট’ গাড়ি কিনে নেন।

যদিও বাড়ির লোক প্রথমে ভেবেছিলেন যে, বিকাশ এই গাড়িটি পরিবারের জন্য কিনেছেন। পরে সব জানতে পারলে সবাই তার ওপর খাপ্পা হয়ে যায়। সেসময় কেও তাকে পাগল বলে তো কেও আরো বেশি কটূক্তি করতে থাকে। কিন্তু বিকাশ সেসবের দিকে নজর দেননি। ১৫ কিমি দূরে মাদিয়াহুন নামে এক শহরে গিয়ে নিজের স্বপ্নের পিছনে পরিশ্রম করতে থাকেন তিনি।

farmer son helicopter

অবশেষে ৭ মাস পর নিজের সাফল্যের ফল স্বরূপ প্রস্তুত করেন প্রথম ডেমো হেলিকপ্টার। এখন অবশ্য সাফল্য লাভের কারণে তার বিষয়ে গর্ব করেন সারা গ্রামের লোক। যেভাবে একখানা গাড়িকে হেলিকপ্টারে বদলেছেন তাতে তার তারিফ রুখছেই না।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button