ATM-এ ৪ সংখ্যারই পিন কেন, এর পিছনে রয়েছে দারুণ এক ভালোবাসার গল্প! রইল সেই কাহিনী

মানবসভ্যতার শুরু থেকেই মানুষ আবিষ্কার করতে ভালোবাসে। সেই আদিমকালে মানুষ আগুনের আবিষ্কার করে। এরপর প্রাচীন যুগে তৈরি হয় চাকা থেকে শুরু করে আজকের এই প্রযুক্তির মেলা। পুরোটাই হতে পেরেছে মানুষের উদ্ভাবনী শক্তির ক্ষমতায়। তেমনই এক আবিষ্কার হলো ATM।

জানলে অবাক হবেন, কিন্তু যিনি ATM মেশিন আবিষ্কার করেছিলেন সেই মানুষটির জন্ম ভারতেই। স্কটিশ বিজ্ঞানীর নাম জন অ্যাড্রিয়ান শেফার্ড ব্যারন। তিনি ১৯৬৭ সালে ATM মেশিনের আবিষ্কার করেন।

তবে এই মেশিন আবিষ্কার করতে গিয়ে তিনি ভাবেন যে, যদি কার্ড হারিয়ে যায় তখন কী হবে? কীভাবে মানুষ নিজের সম্পদকে সুরক্ষিত করে রাখতে পারবে। সেখান থেকেই এই ATM পিনের উদ্ভাবন হয়। যার ফলে কার্ড হারিয়ে গেলেও, টাকা থাকবে সম্পূর্ন নিরাপদ।

কার্ডকে সুরক্ষিত করার উদ্দেশ্যে তিনি প্রথমে ৬ সংখ্যার একটি পিন তৈরি করেছিলেন। তবে এই ৬ সংখ্যার পিনের কারণে তার স্ত্রী এর বিরাগভাজন হতে হয় তাকে। কারণ তার স্ত্রী এই ৬ সংখ্যার কোডটিকে কোনোভাবেই মনে করতে পারছিলেন না। এরপরই তিনি ৪ সংখ্যা বিশিষ্ট একটি কোড তৈরি করেন। স্ত্রীকে ভালোবেসে সিকিওরিটি কোড ছোট করে দেন তিনি।

atm

ATM ছাড়া বাকি অন্যান্য সমস্ত সিকিওরিটি কোড ৬ সংখ্যার হয়। অন্তত ৬ সংখ্যা নাহলে আপনি কোথাও পাসওয়ার্ড সেট করতে পারবেন না। কিন্তু বিজ্ঞানীর তার স্ত্রীয়ের প্রতি ভালোবাসার কারণে ৬ সংখ্যার ATM পিন হয়ে গেল ৪ সংখ্যার।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button