চিনের থেকে বড় ব্যবসা ছিনিয়ে নিল ভারত! কয়েক লক্ষ কোটি টাকা ক্ষতির মুখে বেজিং

২০১৪ সালে ক্ষমতায় এসেই নরেন্দ্র মোদী ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ (Make In India) স্লোগান দেন। সেইসময় এই কথা ভাবার অবধি সাহস পেত না, কিন্তু তিনি করে দেখিয়েছেন। বিরোধীপক্ষের অনেক সমালোচনা এবং কটাক্ষ সহ্য করেও তিনি দেশকে এগিয়ে দিয়েছেন নিজের লক্ষ্যে। এরপর ২০১৯ সালে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার পরই আত্মনির্ভর ভারতের (India) লক্ষ্যে কাজ করতে শুরু করেন তিনি। হঠিয়ে দেন চিনা (China) কোম্পানিদের একচ্ছত্র রাজ।

গাওলয়ান উপত্যকার অস্থির অবস্থার কথা মাথায় রেখে চিনের তৈরি দ্রব্যাদি বর্জন শুরু হয়। এবার সেই লক্ষ্যে আরেক ধাপ এগিয়ে গেল ভারত। এমন এক জায়গায় আঘাত করেছে ভারত সরকার যেখানে চিন সবচেয়ে বেশি চোট পেয়েছে। ভারতীয় বাজারের প্রায় ৪০ শতাংশেরও বেশি খেলনা আসে চিন থেকে। আর সেখানেই কিনা নিজেদের মোক্ষম চাল ছেলেছে মোদি সরকার।

ভারতীয় খুদেদের জন্য ভারতেই খেলনা তৈরীর কাজ চলেছে দ্রুত গতিতে। এক লহমায় ৭০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে চিন থেকে আমদানি করা খেলনার মাত্রা। এমনকি মাত্র ৩ বছরেরই ভারতীয় খেলনার প্রচলন বেড়েছে ৬১ শতাংশ। এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় বাণিজ্য এবং উদ্যোগ মন্ত্রী পীযুষ গোয়েল (Piyush Goyal) বলেন, ‘কি দারণ পরিবর্তন! ভোকাল ফর লোকাল মন্ত্রে কাজ করেই চিনকে মোক্ষম আঘাত হেনেছে ভারত।”

indian toys

প্রধানমন্ত্রী তার মন কি বাত অনুষ্ঠানে ভারতীয় খেলনা তৈরীর বিষয়ে উৎসাহ দেন। তিনি জানান যে, ‘ভারতের খেলনার বাজার ছেয়ে আছে চিনা দ্রব্যে তাই আমাদের উচিত নিজের দেশের মধ্যেই যত বেশি সম্ভব খেলনা প্রস্তুত করা। সমস্ত ক্ষেত্রেই ভারতকে আত্মনির্ভর হতে হবে।’ আর গালওয়ান উপত্যকার সেই অশান্তির পর দেশের জনগণের মধ্যে যে চিন বিরোধী আবহাওয়া তৈরি হয় সেটাকেই কাজে লাগিয়ে দেশের বাজার থেকে ভ্যানিশ করে দেয় চিনা খেলনা।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button