খাওয়া তো দূর, দেখলেই ছ্যাঁকা লাগছে! হুহু করে বাড়ছে ডিমের দর! এক পিসের দাম জানলে আঁতকে উঠবেন

আর খেতে হবে না ডিম (Egg), কারণ এবার টমেটোর (Tomato) মতো এই ডিম কিনতে গিয়েও মাথার ঘাম পায়ে পড়ে যাচ্ছে সাধারণ মধ্যবিত্ত (Middle Class) ঘরের মানুষের। একটি স্লোগান রয়েছে, ‘সান্ডে হো ইয়া মান্ডে, রোজ খাও আন্ডে’। আর এই স্লোগানকে মাথায় রেখে বহু মানুষই, মাছ, মাংসকে ছেড়ে ডিম খাওয়ার প্রতি বেশি মনোযোগ দেন। এর পিছনে কারণ হল ডিমগুলি পুষ্টিকর। টিবির মতো রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতেও ডিম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। উল্লেখ্য, বাজারে শুধু এক প্রজাতির ডিম পাওয়া যায় না। বাজারে বিভিন্ন ধরনের ডিম বিক্রি হয়। ডিমের দাম প্রজাতি অনুযায়ী নির্ধারণ করা হয়। সাধারণত একটি ডিমের দাম ৬ থেকে ৮ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

কিন্তু ৪টি ডিম যদি ১ কিলো চালের দরের বিক্রি হয় তাহলে তা অবশ্যই ভাববার বিষয়। তবে এই অবস্থা কিন্তু ভারতের (India) নয়, বরং এই অবস্থা হল প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের (Bangladesh)। সেখানে মুদ্রাস্ফীতি একপ্রকার আকাশ ছুঁয়েছে। জীবনযাপন করতে গিয়ে সেখানকার বহু মানুষ রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন।

poultry egg

ওপার বাংলায় মশলা পাতি থেকে শুরু করে আনাজের দাম হু হু করে বাড়ছে। মাছ, মাংসের দাম তো ছেড়েই দেওয়া যাক। এদিকে মানুষ যে ডিম সেদ্ধ করেও যে খাবে তারও উপায় নেই, কারণ  সেখানে এক পিস ডিম বিকোচ্ছে ১৪ টাকায়। হ্যাঁ একম ঠিক শুনেছেন। সেখানে ৪টি ডিম বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৫৬ টাকায়। বাংলাদেশের বিখ্যাত পটুয়াখালীর (Patuakhali) বাজার থেকে হাঁস ও দেশি মুরগির ডিম (Chicken Egg) উধাও হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ঘোষিত হল TeT পরীক্ষার দিনক্ষণ, জানুন সময়সূচী ও কীভাবে পাবেন অ্যাডমিট কার্ড

বাজারের পাইকারি বিক্রেতা জানাচ্ছেন, বাজারে ডিমের সঙ্কটের কারণে হঠাৎ করেই দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া, তেমন কোনো মাছও এখন বাজারে নেই। তাই ডিমের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সঙ্কট দেখা দিয়েছে।