রণবীর পাকিস্তানি, প্রিয় খাদ্য গোমাংস! ভিডিও ভাইরাল হতেই ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ বয়কটের আগুনে ঘি

বর্তমানে গোটা বলিউডেই যেন শাপ লেগেছে। শনির দশায় নাজেহাল বলিউড। বিগ বাজেটের মুভি গুলো নিজেদের নির্মাণ খরচের ৫০ শতাংশ তুলতেও হিমশিম খাচ্ছে। আর তারই মধ্যে আসছে বহুপ্রতীক্ষিত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ ছবিটি। বয়কটের ডাক তো চলছিলই, এবার সেই আগুনে ঘি যোগ করেছে এক সদ্য প্রকাশিত ভিডিও।

হু হু করে ভাইরাল হয়ে চলা ভিডিও ঘিরে বয়কটের দাবি আরো বেশি মারাত্মক হয়ে উঠেছে। ছবির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করা রণবীর কাপুর (Ranbir Kapoor) ও আলিয়া ভাটকে (Alia Bhatt) নিয়েই সমস্যা মানুষের। এর আগে ট্রেলার রিলিজ করার সময় থেকেই অভিযোগ উঠে হিন্দু ধর্মের ভাবাবেগে আঘাত করার। এরপর ভিডিও কার্যত সেই দাবিকে আরো জোরালো করেছে।

   

কী সেই ভিডিও: বেশ কয়েক বছর আগের একটি ভিডিও এবার ভাইরাল নেটপাড়ায়। সেখানে রণবীর কাপুর তার রকস্টার ছবির প্রমোশনের জন্য হাজির হন এক খাওয়া দাওয়ার অনুষ্ঠানে। সেখানে খাবার সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে এমন সব কথা বলেন তাই শুনে নেটিজেনরা তাকে পাকিস্তানি ছাড়া আর কিছু মনে করছেন না।

রণবীর বলেন যে, তার পূর্ব পুরুষ পাকিস্তানের পেশোয়ারের বাসিন্দা ছিল। তাই তার খাবারের মধ্যে একটা পেশোয়ারি ছোঁয়া রয়েই গিয়েছে। এতদূর অবধি ঠিক থাকলেও এরপরই রণবীর যোগ করেন যে, মাংস খেতে তিনি খুবই ভালোবাসেন। আর তারপরই তিনি যোগ করেন যে, গো-মাংস নাকি তার অতিপ্রিয়। আর সেই ভিডিও এখন কালবৈশাখীর ঝড়ের মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিকে।

সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ব্রহ্মাস্ত্রকে বয়কট করার দাবী জানিয়েছেন নেটিজেনরা। আর তাই দেখে ঘামতে শুরু করেছেন নির্মাতারা। রণবীরের এই ভাইরাল ভিডিও দেখে দেশবাসীর দাবী যে, রণবীর কাপুর পাকিস্তানি তাই তার সিনেমা বয়কট করা উচিত। এখন থেকেই দুঃস্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন ছবির নির্মাতারা।

অবশ্য সমস্ত দায় একা রণবীরের নয়, এক্ষেত্রে তার স্ত্রী শ্রীমতী আলিয়া ভাট ও কম জাননা। তিনিও নিজের দম্ভে স্থির থেকে এক সাক্ষাৎকারের সময় নেট নাগরিকদের জবাব দেন যে, ‘আমি নিজের পক্ষ কথা বলতে পারবো না। আপনাদের যদি আমাকে পছন্দ তাহলে দেখবেন, না হলে দেখবেন না’। প্রসঙ্গত এর আগে করিনা একই কথা বলেছিলেন এখন তার ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি অবস্থা। এখন আলিয়া কদিন পরে একইরকম ভাবে কাঁদতে শুরু করেন সেটাই দেখার।

সম্পর্কিত খবর