অত্যাধিক চাহিদা স্ত্রীর, দিনরাত করতে চায় শুধু সঙ্গম! অতিষ্ঠ হয়ে আদালতে গেলেন স্বামী

মানুষের ক্ষুধা, তৃষ্ণার মত শারীরিক চাহিদাও অত্যন্ত স্বাভাবিক এবং গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয়। বৈবাহিক সম্পর্ক দুজনেরই সেই শারীরিক চাহিদা পুরন হয়ে যায়। কিন্তু সম্পর্ক সেই চাহিদা যদি মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যায়? তখন কিন্তু উল্টো দিকের মানুষটাকে বেশ সমস্যায় পড়তে হয়। আর হঠাতই তেমন একটি অত্যাশ্চর্যক ঘটনা সামনে এল এবার।

চাহিদা মাত্রতিরিক্ত বেশি হলে তুমুল সমস্যা হতে পারে, যেমন এই মুম্বাই এর দম্পতিদের হয়েছে। তবে ঝামেলা খুব বেশিদূর এগোনোর আগে প্রথমে সঙ্গীকে বোঝানোর চেষ্টা করেন সবাই। কিন্তু তাতে ফল না মিললে আর একটাই জায়গা পড়ে থাকে, আর তা হলো আদালত। সম্প্রতি এমনই এক কেস দাখিল হয়েছে আদালতে, যেখানে স্ত্রী এর লাগামছাড়া শারীরিক চাহিদার সাথে পাল্লা দিয়ে পেরে না ওঠায় বিবাহ বিচ্ছেদের আর্জি জানিয়েছেন এক যুবক।

সংবাদ সুত্রে জানা যাচ্ছে যে, পিটিশনে ওই যুবক অভিযোগ করেন যে, ২০১২ সালে তারা আবদ্ধ হন বিবাহ বন্ধনে। কিন্তু বিয়ের মাত্র কয়েকদিন পরই তিনি বুঝে যান যে, তার স্ত্রী এর অতিরিক্ত যৌন ক্ষুধা রয়েছে। এছাড়া তার এও অভিযোগ যে মদ এবং অন্যান্য পানীয়ের সাথে যৌন উত্তেজনাবর্ধক ওষুধও খাইয়ে দিতেন তিনি। শুধু সেখানেই থেমে থাকেননি তিনি, যৌন লালসার সাথে চলতো অস্বাভাবিক পদ্ধতিতে জোর করে অস্বাভাবিক পদ্ধতিতে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা। আর এতেই নাজেহাল হয়ে পড়েন তিনি।

কিন্তু সমস্যার সেখানেই শেষ নয়, তার স্ত্রী ওই যুবকের নিষেধাজ্ঞাকে এড়িয়ে অন্য অনেকের সাথে যৌন সম্পর্কে যাবেন বাইক হুমকিও দিতেন। একদিনের ঘটনা সম্পর্কে যুবক বলেন জেজ তার স্ত্রী এর চাহিদা এতটাই যে তিনি পেট খারাপ অবস্থাতে হাসপাতালে ভর্তি থাকা কালিনও যৌন মিলনে বাধ্য হন তিনি। এমতাবস্থায় আর সহ্য করতে না পেরে আদালতে আইনি সাহায্যের আশায় হাজির হন।

সব কথা শুনে এবং সমস্ত কথার যথোপযুক্ত গুরুত্ব দিয়ে বিচার বিশ্লেষন করে মুম্বাইয়ের আদালত। তাদের দুজনকেই উপস্থিত থাকতে আদেশ দেওয়ার পরও অনুপস্থিত থাকেন তার স্ত্রী। মহামান্য আদালত অবশ্য পুরো ব্যাপারটার গুরুত্ব বুঝে বিবাহবিচ্ছেদ মঞ্জুর করে দেন। উপস্থিত বিচারক জানান যে, যেহেতু ওই মহিলা কোর্টে উপস্থিত নন, তাই পিটিশন দাখিলকারীর অভিযোগের কোনো প্রত্যুত্তর পাওয়া সম্ভব নয়। সেইজন্য আদালত ওই ব্যক্তির অভিযোগকে মান্যতা দিয়ে বিবাহবিচ্ছেদের অনুমতি দিয়ে দেয়।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button