মাত্র ৩০ টাকায় ছুটবে ১০০ কিমি! Tata Nano-কে ‘সোলার কার” করে চমকে দিলেন বাঁকুড়ার ব্যক্তি

জুগাড়, এই শব্দটার সাথে ভারতীয়দের পরিচয় অত্যন্ত বেশী। আজও বহুক্ষেত্রে বিদেশের মতো সুযোগ সুবিধা মেলেনা দেশের অন্দরে। কিন্তু এই জুগাড়ের কারণে সেরকম সমস্যাও হয়না। তবে বাঁকুড়ার (Bankura) বাসিন্দা মনোজিৎ মন্ডল ‘জুগাড়’ করে যা করলেন তা অনেকের কল্পনাতীত। আর সেই খবরই জানাতে চলেছি আমরা। দেখে নিন কীভাবে টাটা ন্যানো (Tata Nano) হয়ে গেল সোলার গাড়ি (Solar Car)!

যানবাহন আজকাল এক গুরুত্বপূর্ন সামগ্রী হয়ে উঠেছে। কিন্তু বর্তমানে পেট্রোল অথবা ডিজেলের গাড়ির জায়গা ছিনিয়ে নিয়েছে বৈদ্যুতিক গাড়ি (Electric Vehicle)। পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে মানুষ ধীরে ধীরে বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রতি বেশী আকৃষ্ট হচ্ছে। যদিও টাটারা বেশ কম দামেই দারুণ দারুণ বৈদ্যুতিক গাড়ি লঞ্চ করেছে দেশের অন্দরে, তবুও সাধারণ মানুষের কাছে দাম এখনো কিছুটা বেশির দিকেই। কিন্তু ওই যে, জুগাড়! আর সেই কারণেই বাঁকুড়ার মনোজিৎ মন্ডলের কৃতিত্বে আজ সারাভারতবাসী তার তারিফ করছে।

   

বাজারে বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হচ্ছে বটে, কিন্তু সেখানে যে বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়, তা মূলত জীবাশ্ম জ্বালানি থেকেই আসে। কিন্তু মনোজিৎ মন্ডল একটি গাড়ি চালান যা চলে সৌরশক্তিতে৷ অর্থাৎ সম্পূর্নরূপে পরিবেশ বান্ধব। একইসাথে জানিয়ে রাখি মনোজিৎ বাবু কোনো বিজ্ঞানী অথবা গবেষক নন, তিনি পেশায় ব্যবসায়ী। তিনি তার টাটা ন্যানো গাড়িকে সোলার ভেহিকেলে রূপান্তরিত করেছেন।

1660063 solar car

বিশ্বের বড় বড় বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে বিরাট আকারের কোম্পানি যা করতে পারেনি সেটাই করে দেখিয়েছেন তিনি। বলা যেতে পারে নিজের সময়ের থেকে অনেকখানি এগিয়ে রয়েছেন তিনি। সবচেয়ে বড় কথা এই গাড়িতে তার খরচ একেবারেই ন্যূনতম, বা বলা ভালো খরচ হয়ই না! জানলে অবাক হবেন, কিন্তু মনোজিৎবাবুর গাড়ি ১০০ কিমি যেতে মাত্র ৩০ থেকে ৩৫ টাকা খরচ করে।

তবে এজন্য ভারী সমস্যা পোহাতে হয়েছে তাকে। গাড়ি মডিফাই করতে গিয়ে অনেক অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়েছে তাকে। তবে বর্তমানে যেখানে বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রচলন অতটাও হয়নি এবং পেট্রোল আর ডিজেলের দামের কারণে সাধারণ মানুষ বেশ ব্যতিব্যস্ত সেখানে মনোজিৎবাবু আরামসে গাড়ি চড়ে ঘুরে আসতে পারেন।

জানলে অবাক হবেন যে, প্রতি কিলোমিটার যেতে মাত্র ৮০ পয়সা খরচ করে এই সোলার ন্যানো গাড়িটি। এছাড়া চলেও একদম নিঃশব্দে। ইঞ্জিন না থাকায় শব্দ সেরকম হয়না বললেই চলে। অনেকে ভাবতে পারেন গাড়িটিতে হয়তো গতি অতটা নেই, কিন্তু জানিয়ে রাখি সর্বোচ্চ ৮০ কিমি প্রতি ঘন্টা বেগে ছুটতে পারবে এটি।

সম্পর্কিত খবর