২০২৩-র ভারতকে নিয়ে বড় ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন বাবা ভাঙ্গা! সত্য প্রমাণিত হলে আসছে বিনাশ

সম্প্রতি তুরস্ক (Turkey) এবং সিরিয়ায় (Syria) ভয়াবহ ভূমিকম্প (Earthquake) দেখা দিয়েছে। এমন বিনাশকারী প্রাকৃতিক দূর্যোগ কয়েক দশকে এই প্রথম। সেখানে প্রায় ৪০ হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন! ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে গিয়ে গবেষকরা জানিয়েছেন এশিয়াতে আসতে পারে এরকম ভূমিকম্প। আর সেই সম্পর্কে একটি ভবিষ্যদ্বাণী ভাইরাল হচ্ছে ইন্টারনেটে।

এবারেও এই ভবিষ্যদ্বাণীটি করেছিলেন বাবা ভাঙ্গা। তিনি তার ভবিষ্যত দর্শনের জন্য মানুষের কাছে অতীব বিখ্যাত। সারাবিশ্বের সামনে বহুবার মিলিয়ে দিয়েছেন নিজের ভবিষ্যদ্বাণী। উল্লেখযোগ্য বিষয়, তিনি কিন্ত আজ বেঁচে নেই! ১৯৯৬ সালেই মারা গিয়েছেন বাবা ভাঙ্গা। কিন্তু ২০২৩ সাল ভারতের জন্য (India) বেশ উদ্বেগজনক বিষয়, তা নিয়ে জানিয়ে গিয়েছিলেন বাবা ভাঙ্গা।4. did baba vanga predict the drought of 2022 min

   

সবাই অবাক যে, তিনি মারা গেলেও কিভাবে ফলে যাচ্ছে তার ভবিষ্যদ্বাণী! এদিকে ডাচ গবেষক ফ্রাঙ্ক হুগারবিটস তুরস্ক ও সিরিয়ার আশেপাশের এলাকায় ভূমিকম্পের ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, আর একদম সত্য প্রমাণিত হয় তার বক্তব্য! বাবা ভাঙ্গা প্রাকৃতিক দুর্যোগের পূর্বাভাস দিয়েছিলেন। তিনি বলে যান, ২০২৩ সালে বহু ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ অপেক্ষা করছে মানবজাতির জন্য।download (4)

উল্লেখ্য, তুরস্ক ও সিরিয়ার ভূমিকম্প নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী দেওয়া ফ্র্যাঙ্ক হাগারবিটস বর্তমানে ভারত সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন। তিনি বলেছেন, ভারত-আফগানিস্তান-পাকিস্তানে বড় ধরনের ভূমিকম্প আসতে পারে। তার সাথে বাবা ভাঙ্গার বাণী মিলে যাওয়ার অনেকেই বেশ ভীত এবং সন্ত্রস্ত্র।

বাবা ভাঙ্গা ভবিষ্যদ্বাণী করেন, এশিয়ার কোনো একটি দেশে পারমাণবিক বিস্ফোরণ ঘটবে! আর তার ফলে বিশাল ক্ষতি হবে ভারতের। তিনি আরো ভবিষ্যদ্বাণী করেন, পৃথিবীতে একটি বড় ভূতাত্ত্বিক ঘটনা ঘটবে আর তারফলে পৃথিবীর কক্ষপথেই পরিবর্তন আসবে! আর সেখানে মারা যাবেন লাখ লাখ মানুষ।istock 000003195384 large

এবার পৃথিবীর কক্ষপথের পরিবর্তন হলে সারা পৃথিবীতেই ভয়াবহ ভূমিকম্প হবে। এমতাবস্থায় কোন দেশ সেই ভূমিকম্পের কবলে পড়ে সেটাই চিন্তার বিষয়। শুধু তাই না, বাবা ভাঙ্গা ২০২৩ সালে একটি সৌর সুনামির পূর্বাভাসও দিয়েছেন।

সম্পর্কিত খবর