চাকরির চিন্তা ছেড়ে শুরু করুন এই ১০টি ব্যবসা, কামাতে পারবেন মোটা টাকা

জীবিকা নির্বাহের জন্য পৃথিবীতে সবাই কিছু না কিছু কাজ করছে। কেও চাকরি করতে ব্যস্ত তো কেও ব্যবসা খুলেছেন, কেও আবার কৃষিকাজ করে অন্ন জোগাড় করছেন মানুষের মুখে। সমস্ত ক্ষেত্রেই সফলতা মিললেও দেশে ডিজিটালাইজেশন হওয়ার পর থেকে ব্যাবসার জগতে বিরাট পরিবর্তন এসেছে। এবার আপনিও যদি কিছু ব্যবসা করে নিজের সম্পদ বাড়িয়ে নিতে চান তাহলে আজ আমরা আপনাদের ১০ টি সেরা ব্যাবসার ধারণা সম্পর্কে জানাবো। যেখান থেকে আপনারা অনেক টাকা কামাতে পারবেন।

১)কনস্ট্রাকশন ব্যবসা : এই ব্যবসা করার জন্য আপনাকে খুব শিক্ষিত হতে হবে না। স্বল্প শিক্ষিত হলেও এই ব্যবসায় সাফল্য মিলবে। অভিজ্ঞতা বাড়ার সাথে সাথে আপনার লাভ বাড়তে থাকবে।

   

২)আবাসনের ব্যবসা : রিয়েল এস্টেট ভারতের অন্যতম বৃহৎ ব্যবসাক্ষেত্র। ছোট পরিসরে শুরু করলেও পরে খুব বড় জায়গায় পৌঁছতে পারবেন আপনি। এরপর ব্যবসা যত বাড়বে ততই আপনার লাভের পরিমাণ বাড়তে থাকবে।

৩)নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসা : খুবই লাভজনক এই ব্যবসা। কিন্তু এক্ষেত্রে বিনিয়োগ খুব কম করলেই আয় বিরাট হয়। ব্যাবসা শুরুর ৪ থেকে ৫ বছরের মধ্যেই কোটিতে কমাতে পারেন আপনি। তাই শীঘ্রই এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

৪)রেস্টুরেন্ট ব্যবসা : বর্তমান দিনে এই ব্যাবসার চেয়ে ভালো কিছুই হতে পারেনা। মানুষের মধ্যে রেস্টুরেন্টে খাবার চল বাড়ায় বিপুল মুনাফা রোজগার করতে পারবেন আপনি। শহরের প্রাণকেন্দ্রে হলে খুব কম দিনেই আপনার ব্যাবসা ফুলে ফেঁপে উঠবে। তাছাড়া আপনি ভাড়াও নিতে পারেন কোনো ভালো জায়গা।

৫)খেলার দোকান : এবার আপনি যদি খেলাধুলা বা বিনোদন পার্লারের ব্যবসা শুরু করেন, তাহলে সেক্ষেত্রেও 20 থেকে 30 শতাংশ পর্যন্ত দারুণ মুনাফা অর্জন করতে পারেন। সেইসাথে ধীরে ধীরে ব্যবসার বৃদ্ধির সাথে সাথে আপনার লাভও বাড়তে থাকবে।

৬)সামাজিক মিডিয়া তারকা : বলিউড তারকা এবং চলচ্চিত্র তারকাদের সম্পর্কে আপনি নিশ্চয়ই শুনেছেন, কিন্তু আপনি কি সোশ্যাল মিডিয়া স্টার সম্পর্কে শুনেছেন, আমরা আপনাকে বলি যে সোশ্যাল মিডিয়া স্টার মানে ফেসবুক, ইউটিউবের মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে বিখ্যাত ব্যক্তিদের সোশ্যাল মিডিয়া স্টার বলা হয়। এখানে বিখ্যাত হয়েও আপনার দারুন রোজগার হতে পারে।

৭) রেডিমেড স্ন্যাকস ও নমকিনের দোকান : আজকাল সমস্ত গৃহস্থ বাড়িতেই রেডিমেড স্ন্যাকস এবং নমকিন পাওয়া যায়। তাই এই ব্যবসা করলেও উপার্জন ব্যাপক হতে পারে।

৮)হার্ডওয়্যার ব্যবসা : আপনি যদি একটি হার্ডওয়্যারের দোকান খোলেন, তাহলে সেখান থেকেও ভালই মুনাফা কামাবেন। এই ব্যবসাটি করেও আপনার ভাল আয় হতে পারে।

৯)ভিডিওগ্রাফি : উৎসব হোক বা অনুষ্ঠান, প্রফেশনাল ফটগ্রাফারের চল বিরাট বেড়েছে। এমতাবস্থায়, এই ব্যবসাটি করেও ভাল আয় করতে পারেন।

১০)টিফিন সেন্টার ব্যবসা : আপনি যদি একজন ভালো রাঁধুনি হন এবং সেই সাথে আপনি রান্না করতেও বেশ ভালোবাসেন তাহলে টিফিন সেন্টার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এক্ষেত্রে কম বিনিয়োগে আয় বেশ ভালো হয়।

সম্পর্কিত খবর