বাইক চুরির অভিযোগ জানাতে থানায় যেই বাইকে করে যান, সেটিও হয়ে যায় চুরি

ভাগ্য খারাপ থাকলে এমন অনেক কিছুই ঘটে যায় যা আপনার হাতের বাইরে। এমনই এক অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী রইলো বিহার। বাইক চুরির অভিযোগ নিয়ে থানায় পৌঁছে ফের বাইক চুরির সম্মুখীন হলেন এক ব্যক্তি। মিডিয়া সূত্রে জানা গেছে নিজের বাইক চুরি যাওয়ায় সেই অভিযোগ দায়ের করতে থানায় গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনকভাবে থানা থেকে বেরিয়ে দেখেন চুরি গেছে দ্বিতীয় বাইকটিও। এমন ঘটনায় রিতিমত মাথায় হাত পড়েছে সেই ব্যক্তির।

গত বুধবার দুপুর বারোটা নাগাদ এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের পিপরা থানায়। এই থানারই বাসিন্দা দিনেশ কুমার চৌধুরী‌। গত ২৫ এপ্রিল তার মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিলো। অনুষ্ঠানের রাতেই উধাও হয়ে যায় তার স্প্লেন্ডার বাইকটি।

ঘটনার পর স্থানীয় থানায় বাইক চুরি যাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। থানার নির্দেশ অনুযায়ী বুধবার চুরি যাওয়া মোটর সাইকেলের কাগজপত্রসহ আবেদনপত্র জমা দিতে আসেন পিপরা থানায়। বাইক চুরি যাওয়ার পর কার্যত নিজের ভাগ্নের মাহিন্দ্রা কোম্পানির সেঞ্চুরো NXT বাইকটিই ব্যবহার করেছিলেন তিনি। সেদিনও ভাগ্নেকে সাথে নিয়ে এই বাইকটি করেই থানায় যান। কিন্তু বিধি বাম, থানার সামনে বাইকটি দাঁড় করিয়ে ভেতরে প্রবেশ করেন। কিন্তু বেরিয়ে দেখেন আর বাইকটি সেখানে নেই।

আশেপাশের পুলিশকর্মীদের জিজ্ঞাসাও করেন তিনি। কিন্তু কেউই সেরকম কোনোকিছুই বলতে পারেনি। জানা গিয়েছে এই সপ্তাহে পিপরা থানার স্থানান্তর করা হয়েছে। এখনও সমস্ত কাজ শেষ হয়নি। দূর্ভাগ্যবশত সিসিটিভি ক্যামেরাটাও এখনও রয়ে গেছে পুরাতন থানা চত্বরেই। আর তারই সুযোগ নিয়েছে চোরেরা।

খোদ থানা থেকে এভাবে বাইক চুরি যাওয়ার পর নড়েচড়ে বসেছে পুলিশমহল। পিপরার ইনচার্জ চাল্মীকি যাদবের বক্তব্য থেকে জানা গেছে, বিষয়টি সম্পর্কে তথ্য পাওয়া গেছে। পাশাপাশি, তদন্তও শুরু করা হচ্ছে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button