ভারতের এক অচেনা গ্রাম, যেখানে হয় না কোনও অপরাধ! ১০৮ বছরে দায়ের হয়নি একটিও FIR

মানুষের মধ্যে আজকাল রাগ, দ্বন্দ্ব, জিঘাংসা অনেক বেড়ে গিয়েছে। স্বল্প কথাতেই রণংদেহী মূর্তিতে আগত হন তারা। তৈরি হয় ঝামেলা, ঝগড়া, গন্ডগোলের। সেখান থেকে ব্যাপার পৌঁছায় আদালতে। কিন্তু আপনারা কি জানেন ভারতেই এমন গ্রাম আছে যেখানে মামলা, মোকদ্দমা তো দূর একখানা FIR পর্যন্ত ফাইল হয়নি গত ১০৮ বছরে।

হ্যাঁ এমন গ্রামও আছে দেশে, যা সারা দেশের সামনে এক অনন্য কৃতিত্বের দাবি রাখছে। সবচেয়ে অবাক করার ব্যাপার হলো যে, এই গ্রামটি অবস্থিত বিহারে। দেশের সমস্ত রাজ্যের মধ্যে বিহারের নাম এমনিই একটু খারাপ। ওখানে নাকি প্রতিনিয়তই হিংসার ঘটনা দেখা যায়। কিন্তু সেখানেও ব্যতিক্রম এই গ্রাম।

একবিংশ শতাব্দীতে যেখানে হিংসা আর লোভই মানুষের কাছে প্রকট হয়ে উঠেছে সেখানে বিহারের গয়া জেলার আমাস ব্লকের বনকট গ্রাম এক অনন্য নজির গড়েছে। গ্রামের দীর্ঘ ১০৮ বছরের ইতিহাসে কোনোদিন একখানা FIR ও দায়ের হয়নি। জনসংখ্যা ২৫০ হলেও এখানকার মানুষ পারস্পরিক ভ্রাতৃত্বের সাথে বসবাস করে।

ছোটখাটো সমস্যা সব জায়গাতেই দেখা যায়, কিন্তু সেখানেও সুরাহা করে পঞ্চায়েত। থানায় যাওয়ার দরকার পড়েনি কারোর। সেখানে পঞ্চায়েতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। গ্রামটি সম্পূর্ণরূপে অপরাধমুক্ত। এই গ্রামে প্রধানত যাদব, চন্দ্রবংশী এবং মহাদলিত সমাজের লোকেরা বাস করে এবং বেশ সংহতির সাথেই থাকেন তারা। সুখে-দুঃখে একে অপরের পাশে গিয়ে দাঁড়ান।

গ্রামের অর্থনৈতিক অবস্থা পুরোটাই নির্ভর করে কৃষিকাজের ওপর। তবে অনেক সুবিধাই উপলব্ধ রয়েছে সেখানে। যেমন শিশুদের জন্য স্কুল, অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র, নল জল যোজনা, নলি গালি যোজনা, রাস্তা প্রকল্প ইত্যাদি। ছোটখাটো অপরাধে অভিযুক্তরা আর্থিক শাস্তি পায়। স্থানীয় প্রবীণ রামদেব যাদব এই বিষয়ে বলেন যে, গ্রামের ছোটখাটো বিবাদ পঞ্চায়েতই মিটিয়ে দেয়।

bankat village gaya

দোষী সাব্যস্ত হলে অর্থনৈতিক জরিমানা দিতে হয়। ওই টাকা না দিলেও তার বিধান রয়েছে। সেখানে ওই ব্যক্তিকে সামাজিক বয়কট করে চলা হয়। যদিও সেরকম পরিস্থিতি দেখা যায়নি কখনো। আর এই যে টাকা আদায় হয় শাস্তির স্বরূপে, সেটা খরচ করা হখ গরীব দুঃখীদের চিকিৎসায় এবং অভাবী মেয়েদের বিয়ের সময়।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button