১০ বছর চাকরি করেই হতে পারবেন কোটি টাকার মালিক, শুধু প্রতিমাসে করতে হবে এই ছোট্ট কাজ

নিজেদের আর্থিক সম্পত্তির পরিমাণ বাড়ানোর জন্য বিনিয়োগের বিকল্প কিছু হতে পারেনা। কিন্তু চোখ ধাঁধানো অফারের প্রলোভনে পড়ে গ্রাহকরা একেবারে হতচকিত হয়ে যান। কোনটা যে নেবেন, আর কোনটা যে নেবেন না সেই নিয়ে নিজেদের মধ্যেই চলতে থাকে আলোচনা।

ভারতের প্রতিটি যুবকের মধ্যেই উদ্যম থাকে যে, ভালো পড়াশোনা করে ভবিষ্যতে মোটা টাকার চাকরি নেওয়ার। তাহলেই তার জীবন সার্থক। কিন্তু চাকরিতে যোগদানের পর খরচ এতটাই বেড়ে যায় যে মানুষ বুঝতে পারে না কীভাবে টাকা বাঁচাতে হয়।

এমন পরিস্থিতিতে, আজ আমরা আপনাকে বেতনের টাকা বাঁচানোর একটি অনন্য উপায় বলতে যাচ্ছি, যার ফলে মাত্র ১০ বছরের মধ্যেই আপনি কোটিপতি হতে পারেন। তবে এই জন্য আপনাকে প্রতি মাসেই বেতনের কিছু অংশ বিনিয়োগ করতে হবে, তবেই আপনার কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবে।

বেতনের কিছু অংশ বিনিয়োগ করলেই ভবিষ্যতে সেখান থেকে একটি ভাল মুনাফা অর্জনের সুযোগ পেয়ে যাবেন। আপনি আপনার বেতনের একটি অংশ বিনিয়োগের জন্য আলাদা করে রাখতে পারে, তারপর সেই অর্থ ব্যালেন্স ফান্ড বা ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করতে পারেন। এটি আপনার জন্য দুর্দান্ত হতে পারে।

এছাড়াও, প্রতি মাসের বেতনের কিছু অংশ মিউচুয়াল ফান্ডেও বিনিয়োগ করতে পারেন। তবে এই জন্য মিউচুয়াল ফান্ড ডিস্ট্রিবিউটর বা বিনিয়োগ উপদেষ্টার সাথে পরামর্শ করেই বিনিয়োগ করা উচিত। এর সাথে আপনি চাইলে প্রতি বছর তার এসআইপির পরিমাণও বাড়াতে পারে, যার কারণে তিনি ভবিষ্যতে সুবিধা পাবেন।

দ্রুত ধনী হওয়ার উপায় হলো যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিনিয়োগ শুরু করা এবং সেই বিনিয়োগকে নিয়মিত রাখা। এভাবেই একজন ব্যক্তি প্রতি মাসে মাত্র ৪৫ হাজার টাকা বিনিয়োগ করলে ১০ বছরের মধ্যে মোট ৫৪ লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে পারবেন।

indian rupee money a

এরপর আপনার সেই বিনিয়োগে ন্যূনতম ১২ শতাংশ রিটার্ন পেয়ে যাবেন। আর সেখান থেকেই আপনার ৫৪ লাখ টাকা ১০ বছরের বিনিয়োগে হয়ে যাবে ১.০৪ কোটি টাকা! এমন পরিস্থিতিতে আপনিও যদি চাকরি করে ধনী হওয়ার স্বপ্ন দেখে থাকেন, তাহলে এই স্বপ্ন পূরণ করতে আজ থেকেই বিনিয়োগ শুরু করুন।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button