১৫০ টাকার লটারি কেটে কোটিপতি হুগলির মাংস বিক্রেতা, দান করবেন বলে জানালেন বিজেতা

লটারি (Lottery) এমন এক জিনিস যা আমাদের রাতারাতি কোটিপতি বানিয়ে দিতে পারে। লটারির কারণে অনেকের অবশ্য ঘরদোর বিক্রি করতে হয়েছে, কিন্তু তাতে কি, কোটিপতি হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ হয়ে সবাই লটারির টিকিট কেটে নেন। তার মধ্যে অবশ্য একজনই কোটিপতি হবেন। আর ভাগ্যের ফেরে লটারি বিজেতা হয়েছেন হুগলির (Hooghly) পাণ্ডুয়ার বাসিন্দা।

দীর্ঘদিন ধরে টিকিট কেটেছেন তিনি। ১০ বছর অপেক্ষা করে অবশেষে লটারি টিকিট কেটে একেবারে কোটি টাকার পুরষ্কার পেয়েছেন। মাত্র ১৫০ টাকার লটারির টিকিট কেটেছিলেন তিনি, আর সেখান থেকে একেবারে কোটিপতি হয়েছেন তিনি। দারিদ্র্য লাঞ্ছিত পরিবারে আশার আলো এসেছে অবশেষে।

মাংস বিক্রেতা আব্দুল কাশেমের বাড়ি পাণ্ডুয়ার রামেশ্বরপুরে। দারিদ্র্য লাঞ্ছিত পরিবারে মাংস বিক্রী করে কোনরকমে দিন গুজরান হয় তার। আর সেখান থেকেই কপাল ফেরানোর আশায় লটারির টিকিট কাটতেন আব্দুল। বিগত ১০ বছর ধরে আজের দিনটার অপেক্ষায় ছিলেন তিনি।

স্থানীয় এক বিক্রেতার থেকে লটারী টিকিট কাটেন তিনি। আর তার কিছুক্ষণ পরেই তিনি একেবারে কোটিপতি! জয়ীর হাসি হেসে তিনি বলেন, ‘‘এই টাকার কিছু অংশ ব্যবসার কাজে লাগাব। নতুন কোনও ব্যবসা শুরু করব। কিছু টাকা দান করব নিজের খুশি মতো। আর বাকি টাকা ছেলেদের মধ্যে ভাগ-বাটোয়ারা করে দেব।’’

1667572524 lottery

ভগবান তার ওপর মুখ তুলে তাকানোয় বেজায় খুশি তিনি। বহু বছরের দুর্ভাগ্য কাটিয়ে অবশেষে সুদিন ফিরেছে ভাগ্যক্রমে। টাকা জেতার পর থেকেই মুখে চওড়া হাসি তার। যদিও বা আগে কিছু খুচরো টাকা জিতেছেন, কিন্তু এবারের আনন্দ আতের সমস্ত কিছুকে ছড়িয়ে গিয়েছে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button